এইমাত্র পাওয়া

সেন্টমার্টিন কোস্টগার্ড নিয়ে ‘পর্যটকের স্ট্যাটাস’ ভাইরাল!

নভেম্বর ১, ২০১৮

প্রবালদ্বীপ সেন্টমার্টিন ঘুরতে গিয়ে সেখানে অবস্থানরত কোস্টগার্ড সদস্যদের আচরণ ও কর্মকাণ্ড নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ক্ষোভ প্রকাশ করে নিজের ফেইজবুক টাইমলাইনে স্ট্যাটাস নিয়েছেন সাকিব মাহমুদ নামের এক পর্যটক। গত ৩১ অক্টোবর তার টাইমলাইনে তা প্রকাশ হওয়ার পর ভাইরালে রূপ নিয়েছে সেই স্ট্যাটাস। অনেকেই শেয়ার করে তাকে ধন্যবাদ দিচ্ছে নিরাপত্তা দানকারী বাহিনীর এমন অসৌজন্যমূলক আচরণের প্রতিবাদ করায়। আবার অনেকেই এমন আচরণ পর্যটক শিল্পের জন্য ক্ষতিকর বলে মত পেশ করেন। আবার কেউ কেউ কোস্টগার্ডকে আরও সৌজন্যমূলক আচরণের পরামর্শ দেন।
নিন্মে সাকিব মাহমুদের স্ট্যাটাসটি তুলে ধরা হলঃ
‘এইবারের সেন্টমার্টিন ভ্রমণ নিয়ে একটি অভিজ্ঞতা…
মনে হচ্ছে আমরা কোথাও ঘুরতে যায় নি, গিয়েছি জেলখানায়।
শুরুতেই টেকনাফ থেকে সেন্টমার্টিন জেটিতে নামার পর কোস্টগার্ডের ব্যাগপত্র তল্লাশি। রাতের বেলা অদ্ভুত সিদ্ধান্ত, রাত ১০ টার পর নাকি বীচে থাকা যাবে না। হোটেল রুমে থাকার জন্য ত সেন্টমার্টিনে যায় না মানুষ!
রাব্বী ভাইদের সীমানা পেরিয়ে রিসোর্টে গিয়ে শুনলাম বলতেছে ২ রুমে ১১ জন কেন? রুমে কয়জন থাকবে এটা কি কোস্টগার্ড ঠিক করে দিবে?
রাতে কয়টা পর্যন্ত থাকবে এটা ও কি কোস্টগার্ড ঠিক করে দিবে? ব্যাগপত্র তল্লাশি করে তারা কি বুঝাতে চায়?

কয়েকজন ইন্ডিয়ান এবং অন্য বিদেশীদের দেখলাম বাজারে ঘুর ঘুর করতে। তারা নাকি দুপুরে সেন্টমার্টিন নেমে সন্ধ্যা পর্যন্ত রুম পায় নাই। রিসোর্ট এর সাথে কথা বলে জানলাম বিদেশী রাখলে নাকি কোস্টগার্ড ঝামেলা করে।
দেশের ভাবমূর্তি কি বাড়ছে না কমছে?’

আর্কাইভ

ডিসেম্বর ২০১৮
সোম মঙ্গল বুধ বৃহঃ শুক্র শনি রবি
« নভে    
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১  

শিরোনাম :